লক্ষ্মীপুর সন্তান ও স্ত্রী ফেরত পেতে প্রশাসনের সহযোগীতা চাইছে সফিক উল্যাহ

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি

16

লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার রাজিবপুর গ্রামের মৃত দুলা মিয়া পুত্র মো: সফিক উল্যাহ তার ১ বছর ৭ মাসের সন্তান আল মাহমুদ সেজান স্ত্রী রিমা আক্তার রিমু (২২) কে ফেরত পেতে সাংবাদিকদের মাধ্যমে প্রশাসনের সহযোগীতা কামনা চেয়েছে।

১২ জুন (শনিবার) বিকেলে লক্ষ্মীপুরে স্থানীয় একটি দৈনিক পত্রিকা কার্যালয়ে এসে সফিক উল্যাহ অভিযোগ করে বলেন, বিগত ০৮/০৯/২০১৭ ইং তারিখে পারিবারিক ভাবে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চর রুহিতা গ্রামের মো: সোলায়মান এর মেয়ে রিমা আক্তার রিমু সাথে বিয়ে হয়।

বিয়ের পর থেকে তাদের জীবনে দাম্পত্য কলহ শুরু করে। এ নিয়ে সম্প্রতি স্ত্রী তার মায়ের পরামর্শে স্বামী সফিক উল্যাহ কে তালাক প্রদান করে। পরে আদালতে স্ত্রী বাদী হয়ে তার স্বামীর বিরুদ্ধে আদালতে একটি মামলা দায়ের করে।

কিন্তু উভয় পক্ষ সমঝোতা করে মামলা উঠিয়ে নিয়ে পুনরার বিবাহ বন্ধন আবদ্ধ হয়ে সংসার শুরু করে। এর মধ্যে তাদের সংসারে আল মাহমুদ সেজান নামে একটি ছেলে রয়েছে তার বয়স ১ বছর ৭ মাস।

শাশুড়ি তার মেয়ের মাধ্যমে মেয়ের জামাই কাছ থেকে বিভিন্ন সময়ে ৬ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়

সফিক উল্যাহ অভিযোগ তার শাশুড়ি তার মেয়ের মাধ্যমে মেয়ের জামাই কাছ থেকে বিভিন্ন সময়ে ৬ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয় এবং তাদের সংসারে কলহ তৈরি করে তার স্ত্রী ও সন্তান কে শশুর বাড়িতে রেখে দেয়।

সেই তার স্ত্রী ও সন্তান কে দেখতে গেলে কয়েকবার তাকে মারধর করে তাড়িয়ে দেয় এবং বিভিন্ন মামলা জড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেয় বলে তার অভিযোগ।

এ ঘটনায় স্ত্রী ও সন্তান কে ফেরত পেতে মো: সফিক উল্যাহ প্রশাসন ও মানবাধিকার সংগঠনের সহযোগীতা কামনা করছে।

অভিযোগের ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে মো: সফিক উল্যাহ শাশুড়ি রানী আক্তার তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন তিনি তার মেয়ের জামাইয়ের কাছ থেকে কোন টাকা পয়সা নেননি।

তার দাবী তার মেয়ে কে তাদের দাম্পত্য কলহ সৃষ্টি হওয়ার কারনে মেয়ের আমার বাড়িতে রেখে দিয়েছি।

Previous articleরাঙামাটিতে শিক্ষকের লালসার শিকার ছাত্রী: অভিযুক্ত শিক্ষক আটক
Next articleশিক্ষাখাত কি ধ্বংস হয়ে যাবে?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here