ভারতের বিশ্বকাপ আয়োজন করবে আরব আমিরাত!

40

ভারতের করোনাভাইরাস পরিস্থিতি ক্রমেই খারাপ হচ্ছে। দিল্লিতে নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেছে অবস্থা। প্রতিদিন বাড়ছে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা, বাতাস ভারী হয়ে উঠছে স্বজন হারানোর আর্তনাদে।

এমন অবস্থায় আগামী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজন নিয়ে নতুন করে পরিকল্পনা সাজাচ্ছে ভারত।

ভারতের করোনাভাইরাস পরিস্থিতি ক্রমেই খারাপ হচ্ছে। দিল্লিতে নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেছে অবস্থা। প্রতিদিন হুহু করে বাড়ছে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা, বাতাস ভারী হয়ে উঠছে স্বজন হারানোর আর্তনাদে।

এমন অবস্থায় আগামী অক্টোবর-নভেম্বরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজন নিয়ে নতুন করে পরিকল্পনা সাজাচ্ছে ভারত। 

করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে না এলে, বিশ্বকাপ আয়োজনের অবস্থা না তৈরি করা গেলে ভারতে আসরটি থাকবে না। তবে স্থগিত করা হবে না সংক্ষিপ্ততম ফরম্যাটের এই বিশ্বকাপটি। আরব আমিরাতে আয়োজন করা হবে এবারের আসর।

বোর্ড অব কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়া (বিসিসিআই) বিষয়টি নিশ্চিত করেছে বলে খবর প্রকাশ করেছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। 

যদিও বিসিসিআইয়ের সিনিয়র কর্মকর্তা ধীরাজ মালহোত্রা জানিয়েছেন, করোনা পরিস্থিতি খারাপ হতে থাকলেও আগামী অক্টোবর-নভেম্বরে ভারতেই বিশ্বকাপ আয়োজনের পরিকল্পনা আছে বিসিসিআইয়ের।

এই মাসের শুরুর দিকে আইসিসি জানায়, ভারতের বিশ্বকাপ আয়োজন সম্ভব না হলে প্ল্যান ‘বি’ আছে তাদের চিন্তায়। সেটা মধ্যপ্রাচ্যে বিশ্বকাপ সরিয়ে নেওয়া।

বিশ্বকাপ আরব আমিরাতে সরে যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ধীরাজ মালহোত্রা। বিসিসিআইয়ের গেম ডেভেলপমেন্টের এই জেনারেল ম্যানেজার বলেন, ‘বিশ্বকাপ আরব আমিরাতে সরিয়ে নেওয়া হতে পারে।

আমরা আশা করছি এটা বিসিসিআই দ্বারাই পরিচালিত হবে। টুর্নামেন্ট আরব আমিরাতে গেলেও পরিচালনায় থাকবে বিসিসিআই।’

ধীরাজ মালহোত্রা আরও বলেন, ‘টুর্নামেন্টের একজন পরিচালক হিসেবে আমি মাত্রই দায়িত্ব পেয়েছি। আমি ভারতে টুর্নামেন্টটি আয়োজন করার সব ধরনের চেষ্টা করছি। আমরা সব পরিস্থিতিতে পর্যবেক্ষণ করব।

এখন পর্যন্ত আমরা ভারতেই বিশ্বকাপ হবে ধরে টিকিট বিক্রয় এবং সারাবিশ্ব জুড়ে ভ্রমণকারীদের নিয়ে ভাবছি। তবে আমরা এখনও জানি না যে, অক্টোবরে পরিস্থিতি কেমন হবে।’

আইপিএলের ১৪তম আসর ভারতে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। আগের আসরটি আরব আমিরাতে অনুষ্ঠিত হয়। করোনাকালে জৈব সুরক্ষা বলয় থেকে শুরু করে অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধি ভালোভাবেই নিশ্চিত করেছিল আরব আমিরাত। তাই বিকল্প ভাবনা হিসেবে আরব আমিরাতের কথাই ভাবা হচ্ছে।

Previous articleঅকাল জড়া ফুল
Next articleমে দিবসের আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে উৎপাদন বৃদ্ধিতে নিবেদিত হতে হবে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here