টুঙ্গিপাড়ায় গুরুত্বপূর্ন দেড় কি:মি: সড়ক খানা খন্দে ভরা

7

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধিঃ গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া উপজেলার বাসস্টান্ড থেকে পাটগাতী বাজার পর্যন্ত প্রায় দেড় কিলোমিটার রাস্তার বেহাল দশা। রাস্তাটি অনেক দিন সংস্কার না হওয়াতে ভোগান্তিতে পড়েছেন যানবাহন চালক ও পথচারীরা। টুঙ্গিপাড়া উপজেলার একটি গুরুত্বপ‚র্ণ সড়ক পাটগাতী বাসস্ট্যান্ড থেকে পাটগাতী বাজার।

এই সড়ক দিয়ে প্রতিদিন শত শত যানবাহন ও হাজার হাজার মানুষ চলাচল করে। টুঙ্গিপাড়া পৌর এলাকার এই সড়কটির অধিকাংশ স্থান খানা-খন্দে ভরা। সড়কের একটি পাশ দেবে গেছে। ফলে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে এলাকাবাসীর। আর খানা-খন্দে পরে প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা।

সরজমিনে দেখা যায়, পাটগাতী বাজারের সোনালী ব্যাংক থেকে পাটগাতী বাসস্ট্যান্ড পর্যন্ত প্রায় দেড় কিলোমিটার সড়কটির বেহাল দশা। রাস্তার কার্পেটিং উঠে গিয়ে ছোট-বড় খানা খন্দে পরিনত হয়েছে। সামান্য বৃষ্টি হলেই খানাখন্দের স্থানগুলোতে জমে যায় পানি। পানি ভরা রাস্তা দিয়ে চলতে পথচারীদের ভোগান্তি চরমে। এছাড়া একপাশের রাস্তা দেবে যাওয়া সহ ভাঙ্গা ও খানা খন্দের কারনে ভ্যান, ইজিবাইক, মাহেন্দ্র সহ বড় যানবাহন গুলো বিপরীত পাশ থেকে চলাচল করছে। এতে নিয়মিত ঘটছে দুর্ঘটনা ।

উপজেলা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) অফিস সুত্রে জানা যায়, ১৯৯৭-৯৮ সালে নির্মিত হয় পাটগাতী বাসস্ট্যান্ড-বাশবাড়ীয়া সড়ক। প্রায় ৫ বছর আগে বাসস্টান্ড থেকে পাটগাতী বাজার পর্যন্ত সড়কটির বিভিন্ন স্থানে কার্পেটিং উঠে গর্ত হয়ে ভাঙ্গা শুরু হয়। পরে ৩ বছর আগে সড়কের ভাঙ্গা স্থানগুলো মেরামত করে এলজিইডি।

পাটগাতী বাজারের ফুটপাত ব্যবসায়ী ওহিদুল ইসলাম বলেন, বাজারের একটি দোকানের সামনে পান বিড়ি সিগারেটের দোকান দিয়েছি। আর তার সামনের রাস্তার বেশ খানিকটা অংশ কার্পেটিং উঠে গিয়ে খানার মত হয়েছে। সামান্য বৃষ্টি হলেই দোকানের সামনে রাস্তার ভাঙ্গা অংশে পানি জমে যায়। তখন সামনে থেকে গাড়ি গেলে পানি ছিটে পথচারীদের গায়ে ও দোকানের মধ্যে যায়। এছাড়া পাটগাতি বাজার থেকে বাস স্ট্যান্ড পর্যন্ত রাস্তার বিভিন্ন জায়গায় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে এতে প্রতিনিয়ত বাড়ছে দুর্ঘটনা। তাই আমাদের দাবি রাস্তাটি ভালোভাবে সংস্কার করা হোক।

পাটগাতী গ্রামের অসীম শেখ, বাবু শেখ সহ অনেকে জানান, আমরা দীর্ঘদিন ধরে দেখছি রাস্তাটির বেহাল দশা হয়ে আছে। কয়েক বছর আগে দেখেছি রাস্তার গর্ত ও ভাঙ্গা স্থান গুলো কোন রকমে মেরামত করা হয়েছে। কিন্তু কিছুদিন পর রাস্তার আবার একি দশা। তাই আমাদের দাবি রাস্তা অতি শিঘ্রই সংস্কার করে চলাচলের উপযোগী করা হোক।

ডুমুরিয়া ইউনিয়নের লেবুতলা গ্রামের ভ্যান চালক সিদ্দিক শেখ বলেন, পাটগাতী বাজার থেকে বাসস্টান্ড পর্যন্ত রাস্তার বিভিন্ন জায়গায় ভাঙ্গা ও গর্ত রয়েছে। ভাঙ্গা জায়গা থেকে চলাচল করলে ভ্যানের চাকা, রিংয়ের ক্ষতি হয়ে নষ্ট হয়ে যায়। এছাড়া ভাঙ্গা জায়গা থেকে ভ্যান চালিয়ে যাত্রীরাও গালমন্দ করে। তাই আমরা রাস্তার ভালো অংশ থেকে চলাচল করি।

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) টুঙ্গিপাড়া উপজেলা প্রকৌশলী ফয়সাল আহমেদ বলেন, এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন শত শত ইজিবাইক, ভ্যান, মাহেন্দ্র সহ বড় যানবাহন চলাচল করে তাই রাস্তার বিভিন্ন স্থানে ভেঙ্গে যায়। ভাঙ্গা জায়গা গুলো বারবার সংস্কার করা হলেও বড় গাড়ি চলাচলের কারণে আবার ভেঙ্গে যায়। সড়কটির বিষয়ে আমাদের পরিকল্পনা গ্রহণ করা আছে এবং আগামীতে সেটি বাস্তবায়ন করা হবে।

Previous articleআবারো পাঠদানে প্রস্তুত বগুড়ার প্রায় তিন হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান
Next articleই-প্রসিকিউশনে সময় অপচয় রোধ ও দুর্নীতি কমবে: লক্ষ্মীপুরে পুলিশের ডিআইজি

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here