সংসদ লাইব্রেরিতে বঙ্গবন্ধুর শত বাণীর ‘সংকলন’

51

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০০ বাণী নিয়ে কোলাজ করেছে জাতীয় সংসদ। বঙ্গবন্ধুর ৪৫তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে এই কোলাজ তৈরি করা হয়েছে।

আলো-ছায়ার দৃষ্টিনন্দন এই কোলাজ এখন সংসদ লাইব্রেরির দরজায়। এছাড়া সংসদের লাইব্রেরিতে বঙ্গবন্ধু কর্নার এখন নানা ধরনের বইয়ে সমৃদ্ধ।

সংসদ ভবন সূত্রে জানা যায়, সংসদ সচিবালয়ের গ্রন্থাগারে বঙ্গবন্ধুর বিভিন্ন ভাষণ/বিবৃতির কোটেশন নিয়ে একটি কোলাজ প্রদর্শনীর জন্য সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বাধ্যতামূলকভাবে জাতির পিতার বিভিন্ন ভাষণ/বিবৃতি ও বিভিন্ন গ্রন্থ যেমন-অসমাপ্ত আত্মজীবনী, কারাগারের রোজনামচা, আমার দেখা নয়াচীন ইত্যাদিতে উল্লিখিত উল্লেখযোগ্য দুটি উদ্ধৃতি (সোর্সসহ) হার্ডকপি চাওয়া হয়।

তবে বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ থেকে উদ্ধৃত উক্তিসমূহ বহুল ব্যবহৃত বিধায় অন্যান্য কোটেশনকে অগ্রাধিকার দেয়ার জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়। এরপর সেখান থেকে সেরা উদ্ধৃতিগুলো একত্রিত করে এই কোলাজ প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়।

এ-সংক্রান্ত কমিটির প্রধান সংসদের অতিরিক্ত সচিব মো. নূরুজ্জামান বলেন, ‘আমরা এখন কোলাজ প্রদর্শন করছি। এগুলো লিফলেট আকারে এমপিদের মধ্যে বিতরণের চিন্তাভাবনা চলছে। এছাড়া বই আকারেও প্রকাশ করা হবে।’

সমৃদ্ধ হয়েছে সংসদ লাইব্রেরির বঙ্গবন্ধু কর্নার

সংসদের লাইব্রেরিতে চালু হওয়া বঙ্গবন্ধু কর্নার এখন বিভিন্ন ধরনের বইয়ে কানায় কানায় পূর্ণ। এই কর্নারের পাশাপাশি রাখা হয়েছে মুক্তিযুদ্ধ কর্নার। লাইব্রেরিতে প্রবেশের মুখেই এই দুটি কর্নার।

এখানে থরে থরে সাজানো আছে সংশ্লিষ্ট বই। সম্প্রতি তিন কোটি টাকা ব্যয়ে লাইব্রেরির সংস্কার করার সময় এই দুটি কর্নার স্থাপন করা হয়।

সূত্র জানায়, সংসদের লাইব্রেরিতে প্রায় ৪০ হাজার বই আছে। এরমধ্য থেকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে লেখা প্রবন্ধ, নিবন্ধ, অনুবাদ, গল্প, উপন্যাস ও কবিতার বই নিয়ে বঙ্গবন্ধু কর্নারে রাখা হয়েছে। এছাড়া কেনা হয়েছে নতুন নতুন বই।

এ বিষয়ে সংসদ লাইব্রেরি-সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি সংসদের ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া বলেন, ‘লাইব্রেরিতে বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ কর্নারে সংশ্লিষ্ট বই সংগ্রহ করে রাখা হচ্ছে। এমপি ও গবেষকদের বসার জন্য আরামদায়ক সোফা রাখা হয়েছে। এসব কর্নারের জন্য প্রয়োজনে আরও বই কেনা হবে।’

কোটি টাকার প্রজেক্টে লাইব্রেরিতে ইন্টার পার্লামেন্টারি ইউনিয়ন (আইপিইউ) এবং কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশন (সিপিএ) নামে আরও দুটি কর্নার রাখা হয়েছে।

বই যাতে নষ্ট না হয় সেজন্য থাকছে তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থা বইয়ের দীর্ঘ স্থায়িত্বের জন্য বইগ্রহীতার কাছ থেকে বই ফেরত পাওয়ার পর জীবাণুমুক্ত করতে বুক ট্যারিলাইজ মেশিনের (বই জীবাণুমুক্তকরণ যন্ত্র) ব্যবস্থা করা হয়েছে।

এছাড়া সংসদ লাইব্রেরির বইয়ের অনলাইন ক্যাটালগের জন্য কোহা লাইব্রেরি সফটওয়্যার (Koha Library) ইনস্টল করা হয়েছে।

সূত্র আরও জানায়, ২০১৪ সাল থেকে ই-নিউজ ক্লিপিংসের কাজ নিয়মিত চলছে। সংসদ বিতর্ক সার্চের জন্য ২০১৪ সালের মার্চ মাস থেকে ডি স্পেসের (ডিজিটাল রিপোজিটরি সফটওয়্যার) ব্যবহার শুরু হয়েছে। এই সফটওয়ার ব্যবহার করে অষ্টম ও নবম সংসদের বিতর্ক থেকে যেকোনো তথ্য সার্চ করা যায়।

Previous articleদেশে স্টার জলসাসহ বিভিন্ন ভারতীয় চ্যানেলের সম্প্রচার বন্ধ!
Next articleমহানবী (স:)এর ব্যঙ্গচিত্রের প্রতিবাদে নোয়াখালীতে বিক্ষোভ মিছিল; কুশপুত্তলি দাহ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here