জরুরিভাবে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের প্রয়োগ স্থগিত প্রয়োজন: জাতিসংঘ মানবাধিকার হাইকমিশনার

8

“সরকারকে অবশ্যই নিশ্চিত করতে হবে যে মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর বিষয়ে তদন্তটি যাতে দ্রুত, স্বচ্ছ এবং স্বাধীনভাবে হয় এবং অন্য আটককৃতদের সঙ্গে দুর্ব্যবহারের যে কোনও অভিযোগের তাৎক্ষণিক তদন্তও করা উচিত।”

লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর বিষয়ে তদন্ত দ্রুত, স্বচ্ছ এবং স্বাধীনভাবে করার বিষয়টি নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ সরকারকে আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাই কমিশনার মিশেল ব্যাচেলেট।

সোমবার সংস্থাটির ওয়েবসাইটে দেওয়া এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ আহ্বান জানান তিনি।

তিনি বলেন, “সরকারকে অবশ্যই নিশ্চিত করতে হবে যে মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর বিষয়ে তদন্তটি যাতে দ্রুত, স্বচ্ছ এবং স্বাধীনভাবে হয় এবং অন্য আটককৃতদের সঙ্গে দুর্ব্যবহারের যে কোনও অভিযোগের তাৎক্ষণিক তদন্তও করা উচিত।”

ব্যাচেলেট বলেন, “ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ত্রুটিনাটির বিষয়টি খুটিয়ে দেখা দরকার যার অধীনে মুশতাক আহমেদকে অভিযুক্ত করা হয়েছিল এবং বাক-স্বাধীনতা ও প্রকাশের অধিকার প্রয়োগের জন্য যাদের এই আইনের মাধ্যমে আটক করা হয়েছিল তাদের অবশ্যই মুক্তি দিতে হবে।” 

জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাই কমিশনার আরও বলেন “সরকারের সমালোচনার শাস্তি দেওয়ার জন্য ব্যবহৃত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের অসম্যক বর্ণিত, অত্যধিক বিস্তৃত ধারা সম্পর্কে দীর্ঘদিন ধরেই উদ্বেগ প্রকাশ করে আসছে জাতিসংঘের বিভিন্ন মানবাধিকার সংস্থা।

“বাংলাদেশের জরুরিভাবে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের প্রয়োগ স্থগিত করা প্রয়োজন এবং আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইনের প্রয়োজনীয়তার সঙ্গে সামঞ্জস্য করার জন্য তার বিধানগুলির পর্যালোচনা করা দরকার। এ বিষয়ে কর্তৃপক্ষের সাথে সংলাপ চালিয়ে যাওয়ার জন্য আমার অফিস প্রস্তুত রয়েছে।” 

টিবিএস

Previous articleমুক্তি পাচ্ছে নায়িকা দীঘির প্রথম সিনেমা
Next articleমুজিব বর্ষের শীর্ষ করদাতা হলেন কাউছ মিয়া

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here