একাধিক মামলায় অভিযুক্ত যুবলীগ নেতা মিল্টন ঢাকা থেকে আটক।

276

এম এ হাসান (দিনাজপুর জেলা) প্রতিনিধিঃ নানা অপকর্ম করে দীর্ঘদিন যাবৎ পলাতক থাকার পরে অবশেষে পুলিশের হাতে ঢাকা থেকে আটক হয়েছে দিনাজপুর জেলা যুবলীগের সাবেক সহ-সম্পাদক খলিলুল্লাহ আজাদ মিল্টন।

তার বিরুদ্ধে বালুমহল ইজারা নিয়ে দেওয়ার নাম করে অর্থ আদায়, সরকারি কর্মচারীকে ভয়ভীতি প্রদর্শন ও সরকারি কাজে বাধা প্রদানের মামলা এবং মামলা তুলে নেয়ার জন্য বাদীদের ভয়ভীতি ও হুমকি দেওয়া অভিযোগ রয়েছে।

আটককৃত যুবলীগ নেতা খলিলুল্লাহ আজাদ মিল্টন দিনাজপুর জেলার খানসামা উপজেলার হোসেনপুর গ্রামের হাবিবুল্লাহ আজাদের ছেলে।

দিনাজপুরের খানসামা থানার অফিসার ইনচার্জ কামাল হোসেন বিডি নিউজ গ্লোবালকে বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, খলিলুল্লাহ আজাদ মিল্টনের নামে খানসামা থানায় বালুমহাল ইজারা নিয়ে দেওয়ার নাম করে অর্থ আত্মসাত, একজন ব্যাংক কর্মকর্তাকে ভয়ভীতি প্রদর্শন এবং সরকারি কাজে বাধা প্রদানের অভিযোগ সহ মোট তিনটি মামলা রয়েছে।

এছাড়াও, তার বিরুদ্ধে করা সংশ্লিষ্ট মামলার বাদীদেরকে  মামলা তুলে নিতে বিভিন্ন ধরণের হুমকি দেওয়ায়, প্যানাল কোড – এ বিজ্ঞ আদালতে ৩ টি প্রসিকিউশনও রয়েছে। সে দীর্ঘদিন যাবৎ পলাতক ছিল এবং ঢাকার মোহাম্মদপুরের একটি বাড়িতে গ্রেফতার এড়াতে আত্মগোপন করেছিলেন।  

বৃহস্পতিবার (১৯ নভেম্বর) ভোর সাড়ে ৪টার দিকে ঢাকা (ডিএমপি)’র মোহাম্মদপুর থানা পুলিশের সহযোগিতায় মোহাম্মদপুর এলাকার একটি বাড়ি থেকে তাকে আটক করে পুলিশ এবং বৃহস্পতিবার বিকেলর মধ্যেই তাকে দিনাজপুর জেলার খানসামা থানায় নিয়ে আসা হয় ও ৩ টি মামলা ও প্যানাল কোডে ৩ টি প্রসিকিউশনে তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

বর্তমানে সে খানসামা থানা হেফাজতে রয়েছেন। শুক্রবার (২০ নভেম্বর) সকালে আদালতের মাধ্যমে তাকে জেলহাজতে পাঠানো হবে বলে বিডি নিউজ গ্লোবাল কে নিশ্চিত করেছেন খানসামা থানার অফিসার ইনচার্জ কামাল হোসেন।

অপরদিকে যুবলীগ নেতা মিল্টনের গ্রেফতারের বিষয়ে দিনাজপুর জেলা যুবলীগের সভাপতি রাশেদ পারভেজ বলেন, মিল্টন বিগত দিনে জেলা যুবলীগের কার্যনির্বাহী কমিটিতে সহ-সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালন করেছেন।

কিন্তু বর্তমান কমিটিতে তার কোন পদ-পদবী নেই। তার বিরুদ্ধে করা অভিযোগ গুলো প্রমাণিত হলে প্রশাসন আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। তবে, দলীয় শৃঙ্খলাভঙ্গকারী কিংবা কোন অপরাধীর ঠিকানা জেলা যুবলীগে কখনোই হবে না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here