ইবি শিক্ষককে হত্যার হুমকি: ৫ সপ্তাহেও মিলেনি তদন্ত প্রতিবেদন

11

ইবি লাইভ: ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) আল-ফিকহ অ্যান্ড লিগ্যাল স্টাডিজ বিভাগের অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর আলতাফ হোসেনকে হত্যার হুমকির ঘটনায় তিন সপ্তাহের সময় দিয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করেছিল বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

তবে পাঁচ সপ্তাহ পেরুলেও প্রতিবেদন জমা দেয়নি তদন্ত কমিটি। এনিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন মহলে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।

জানা গেছে, গত ৬ জানুয়ারি হত্যার হুমকিদাতা ব্যবস্থাপনা বিভাগের অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর এম এম নাসিমুজ্জামানের বিরুদ্ধে তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করে কর্তৃপক্ষ।

কমিটিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক কমিটির আহ্বায়ক ও ইংরেজি বিভাগের প্রফেসর ড. মামুনুর রহমানকে আহ্বায়ক, প্রক্টর প্রফেসর ড. জাহাঙ্গীর হোসেনকে সদস্য সচিব এবং আইন বিভাগের প্রফেসর ড. রেবা মন্ডলকে সদস্য করা হয়। কমিটিকে তিন সপ্তাহের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়।

কিন্তু নির্ধারিত সময়ের মধ্যে প্রতিবেদন প্রকাশ করতে না পেরে সময় বৃদ্ধির আবেদন করে কমিটি। পরে কমিটিকে আরো দুই সপ্তাহ সময় দেয় কর্তৃপক্ষ। আজ বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারি) সে সময় শেষ হলেও কমিটি প্রতিবেদন জমা দেয়নি।

তারা আবারো তিন সপ্তাহ সময় চেয়ে আবেদন করেছেন বলে জানা গেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) আতাউর রহমান আবেদনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে সময় বাড়ানোর পরেও তদন্ত প্রতিবেদন জমা না দেওয়ায় বিভিন্ন মহলে সমালোচনা চলছে। সমালোচনাকারীরা তদন্তের স্বচ্ছতা ও কমিটির সদিচ্ছা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন।

তদন্ত কমিটি তৎপর হলে আরো আগেই তদন্ত শেষ হতো বলে দাবি তাদের। দুই দফায় পাঁচ সপ্তাহ সময় পেলেও এই সময়ে মাত্র চারটি মিটিং করেছে তদন্ত কমিটি বলেও অভিযোগ রয়েছে।

তবে স্বাভাবিক প্রক্রিয়া সচ্ছতার সাথে তদন্ত চলছে বলে দাবি কমিটির সদস্যদের। এ বিষয়ে কমিটির সদস্য প্রফেসর ড. রেবা মন্ডল বলেন, ‘বিষয়টি নিয়ে আমরা দফায় দফায় মিটিং করছি। স্বচ্ছতার সঙ্গে তদন্তের স্বার্থে সময়ের প্রয়োজন হয়েছে। এ জন্য আমরা আবারো সময় চেয়েছি।’

কমিটির আহ্বায়ক প্রফেসর ড. মামুনুর রহমান বলেন, ‘আমাদের তদন্ত এখনো শেষ হয়নি। এখনো নতুন তথ্য উপাত্ত পাওয়া যাচ্ছে সেগুলো যাচাই বাছাই করা হচ্ছে এবং কিছু তথ্য এখনো হাতে আসেনি।

এজন্য সময় প্রয়োজন হচ্ছে। আমরা তিন সপ্তাহ সময়ের জন্য আবেদন করেছি তবে এখনো কিছু জানানো হয়নি।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ও কমিটির সদস্য সচিব প্রফেসর ড. জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, ‘আমরা আজও মিটিং করেছি। সেখানে ভূক্তভোগী শিক্ষক কিছু নতুন তথ্য জমা দিয়েছে যেগুলো নিয়ে যাচাই বাছাই করা হবে। স্বচ্ছতার সাথে স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় তদন্ত  চলছে। দ্রুতই তদন্ত শেষে প্রতিবেদন জমা দেওয়া হবে।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. আবদুস সালাম বলেন, ‘কমিটি তদন্ত শেষ করতে না পারায় আবারোও রেজিস্ট্রার বরাবর সময় আবেদন করেছে। আমি ক্যাম্পাসের বাইরে আছি, শনিবার ক্যাম্পাসে গিয়ে বিষয়টি বিবেচনা করব।’

ভূক্তভোগী শিক্ষক আলতাফ হোসাইন বলেন, ‘আমি প্রশাসনের সিদ্ধান্তের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। আমার বিশ্বাস তদন্ত কমিটি স্বচ্ছতার সাথে ঘটনার তদন্ত করবে এবং আমি ন্যায় বিচার পাবো।’

উল্লেখ্য, গত ১ জানুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক এলাকায় পূর্ব শত্রুতার জেরে তুচ্ছ বিষয়কে কেন্দ্র করে অভিযুক্ত শিক্ষক নাসিমুজ্জামান প্রথমে গালাগাল ও পরে হত্যার হুমকি দেন বলে অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী শিক্ষক আলতাফ হোসেন।

এ ঘটনায় সেদিন বিকেলেই ইবি থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন ভুক্তভোগী শিক্ষক। একইসাথে পরের দিন শনিবার প্রশাসন বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন তিনি। এ ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষককে সহকারী প্রক্টরের পদ থেকে অব্যাহতি দেয় প্রশাসন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here